• বুধবার ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    স্বপ্নচাষ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন  

    ‘হ্যাঁ, আমি কৃষক আর ছাত্রলীগের কথাই বলছি’

    ইব্রাহিম হোসেন মুন

    ১১ মে ২০২০ ৩:৫৯ অপরাহ্ণ

    ‘হ্যাঁ, আমি কৃষক আর ছাত্রলীগের কথাই বলছি’

    ইব্রাহিম হোসেন মুন (ফাইল ছবি)

    কোথায় গেলো বুদ্ধিজীবী, জ্ঞানী, পন্ডিত মশাই? কোথায় গেলো তাবিজ-কবজ-দোয়া দেওয়ার কষাই? কোথায় গেলো গণক পাঠি কৃষক বলে ধরি লাঠি? আসিস এবার কাছে।

    করোনার সুবাদে ইন্ডিয়ান একটি বাংলা সিমেমা দেখছিলাম। নায়কের বাবা ছোট-খাটো ঝুট-ঝমেলা হলেই সবাইকে বাড়ি থেকে বের করে দিতেন। একদিন মা অসুস্থ তাই বাবাসহ মাকে নিয়ে নায়ক গাড়ি চালিয়ে হাসপাতালে রওয়ানা দিলেন। তাড়াহুড়া করতে গিয়ে এক পথচারীর গায়ে ধাক্কা লাগলে নায়ক গাড়ি থামাতে চান। কিন্তু বাবার আদেশ ‘গাড়ি চালাও’। আবার লোকজনের বাধায় বাধ্য হয়ে নায়ককে মারপিট করতে হলো এবং মাকে নিয়ে হাসপাতালে গেলেন। মা সুস্থ হলে ঘটনার ফাঁকে বাবাকে নায়ক বলছেন, ‘ছোট-খাটো অপরাধে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছো। কিন্তু আজ আমার অপরাধ অথচ মার খেলো নিরাপরাধ। অথচ আমাকে কিছুই বললে না। কারণ আজ তোমার স্বার্থ জড়িত।

    নিজেদের স্বার্থে ডাক্তার প্রয়োজন। তাই তাদের নিরাপত্তা দাও, ঝুঁকি ভাতা দাও, আরও কতো কি? নিরাপত্তার স্বার্থে পুলিশ প্রয়োজন। তাই তাদের নিরাপত্তার উপকরণ দাও, ঝুঁকি ভাতা দাও।

    অথচ যাদের নিরাপত্তা না থাকলে পেটে খাবার ঢুকবে না, দেশ হবে অচল সেই মহান কৃষকদের কথা কেউ বললাম না। কারণ ওই যে, ঈশ্বর থাকেন ওই গ্রামের ভদ্রপল্লিতে।

    ধন্যবাদ জানাই ছাত্রলীগকে ঈশ্বর দূত হয়ে কৃষকের ধান কাটার জন্য। আমি ডাক্তার পুলিশের নিরাপত্তার পক্ষে, তবে কৃষককে বাদ দিয়ে নয়।

    “হ্যাঁ আমি কৃষক আর ছাত্রলীগের কথাই বলছি”। কৃষক আর ছাত্রলীগ এ দেশের শিকড়। কৃষক বাঁচলে দেশ বাঁচবে আর ছাত্রলীগ থাকলে বিপদের কান্ডারি হবে। আমাদের এ দেশে জ্ঞানী, বুদ্ধিজীবী,‌ পরামর্শদাতা কম নেই, যা এ দেশে একমাত্র বিনা পয়সায় পাওয়া যায়। এই বিনা পয়সার খোরাক জোটেনি কৃষকের দারে। জ্ঞান দেই, বুদ্ধি দেই, পরামর্শ দেই, গবেষণা করি। কিন্তু করোনা প্রমাণ করলো সবই করি নিজ স্বার্থে।

    কৃষকের শক্ত দু,টি হাত বলে দেয় আমরা করি তোমাদের স্বার্থে করোনা করি না ভয়, মাঠে নেমে কাজ চলছে অবিরাম পাশে আছে সূর্য সন্তান ছাত্রলীগ।

    কোথায় গেলো বুদ্ধিজীবী, জ্ঞানী, পন্ডিত মশাই? কোথায় গেলো তাবিজ-কবজ-দোয়া দেওয়ার কষাই? কোথায় গেলো গণক পাঠি কৃষক বলে ধরি লাঠি? আয় এবার কাছে।

    সম্ভাব হলে আমরা সবাই কৃষকের পাশে দাঁড়াই, তবে কতিপয় এমপি-মন্ত্রীর সেলফির জন্য নয়।

    (ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)
    লেখক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি।

    স্বপ্নচাষ/আরএস

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৩:৫৯ অপরাহ্ণ | সোমবার, ১১ মে ২০২০

    swapnochash24.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
    advertisement

    সম্পাদক : এনায়েত করিম

    প্রধান কার্যালয় : ৫৩০ (২য় তলা), দড়িখরবোনা, উপশহর মোড়, রাজশাহী-৬২০২
    ফোন : ০১৫৫৮১৪৫৫২৪ email : swapnochash@gmail.com

    ©- 2021 স্বপ্নচাষ.কম কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।