• শুক্রবার ৫ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    স্বপ্নচাষ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন  

    ফরিদপুর হাসপাতালের ১০ ভেন্টিলেটর সচল

    স্বপ্নচাষ ডেস্ক

    ১৯ এপ্রিল ২০২০ ৩:৪০ অপরাহ্ণ

    ফরিদপুর হাসপাতালের ১০ ভেন্টিলেটর সচল

    সংগৃহীত ছবি

    ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ (ফমেক) হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ) অবশেষে চালু করা হয়েছে। দীর্ঘদিন অচল হয়ে পড়ে থাকায় ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছিল এই ইউনিটটি। সম্প্রতি করোনা রোগের চিকিৎসার তোড়জোড় শুরু হলে নজর পড়ে এই ইউনিটের দিকে। তারপর অচল যন্ত্রপাতিগুলো সচল করার উদ্যোগ নেয়া হয়। এতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীদের চিকিৎসায় কিছুটা হলেও অগ্রগতি হলো।

    রোববার (১৯ এপ্রিল) পর্যন্ত আইসিইউয়ের ১০টি ভেন্টিলেটর চালু হওয়ায় এখানে মুমূর্ষু রোগীদের চিকিৎসা দেয়া সম্ভব হবে বলে আশা কর্তৃপক্ষের। ইতোমধ্যেই এই হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ২০ শয্যার একটি আইসোলেশন ওয়ার্ড চালু করা হয়েছে।

    ফমেক হাসপাতালের পরিচালক ডা. সাইফুর রহমান বলেন, জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য সম্প্রতি আমরা এই ইউনিটটি চালু করার উদ্যোগ নিতে গিয়ে দেখি সেখানকার ১৬টি বিশেষায়িত শয্যার যে কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাসের ভেন্টিলেটর মেশিন রয়েছে তার সবই অচল হয়ে রয়েছে। এরপর ঢাকা থেকে প্রকৌশলী এনে সেগুলো মেরামতের উদ্যোগ নেয়া হয়।

    তিনি বলেন, ঢাকা হতে আসা প্রকৌশলীরা এ পর্যন্ত ১০টি ভেন্টিলেটর সচল করতে সক্ষম হয়েছেন। আপাতত এসব শয্যা দিয়েই আমরা এই ইউনিটটি চালু করার উদ্যোগ নিয়েছি। বাকিগুলো পরবর্তীতে মেরামতের ব্যবস্থা করতে হবে। বর্তমানে অচল হয়ে পড়ে থাকা ছয়টি ভেন্টিলেটর সচল করতে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম বিদেশ থেকে আমদানি করতে হবে। যার জন্য অনেক প্রক্রিয়া অবলম্বন করতে হবে।

    প্রসঙ্গত, ফরিদপুরের ৯টি উপজেলার জনগণের বাইরেও বৃহত্তর ফরিদপুরের লাখ লাখ মানুষ উন্নত চিকিৎসার জন্য ফমেক হাসপাতালের প্রতি অনেকাংশে নির্ভরশীল। এখানে অনেক মূল্যবান যন্ত্রপাতি এভাবে অচল হয়ে থাকলে জনগণকে ভোগান্তি পোহাতে হয়। বর্তমানে এই আইসিইউ চালু হওয়ায় এখানকার অধিবাসীরা উপকৃত হবেন।

    জানা গেছে, প্রায় পাঁচ বছর আগে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপন করা হয়েছিল ১৬ শয্যার এই আইসিইউ। এটি দেশব্যাপী বহুল বিতর্কিত ৩৭ লাখ টাকার পর্দাকাণ্ডের সেই ইউনিট। বর্তমানে এই ইউনিটের মালামাল ক্রয়ের বিষয়টি নিয়ে দুদকের মামলা চলছে। বিধায় সেখানে কেউ হাত দিতো না। এখানকার মালামাল দীর্ঘদিন অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে ছিল। সম্প্রতি সেসবের খোঁজ নিতে গেলে সবই অচল অবস্থায় পাওয়া যায়। এর মাঝেই আইনি জটিলতা এড়াতে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে জরুরি পরামর্শক্রমে রাষ্ট্র ও জনস্বার্থে এসব যন্ত্রপাতি সচল করার উদ্যোগ নেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

    স্বপ্নচাষ/আরএস

    Facebook Comments

    বাংলাদেশ সময়: ৩:৪০ অপরাহ্ণ | রবিবার, ১৯ এপ্রিল ২০২০

    swapnochash24.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১  

    সম্পাদক : এনায়েত করিম

    প্রধান কার্যালয় : ৫৩০ (২য় তলা), দড়িখরবোনা, উপশহর মোড়, রাজশাহী-৬২০২
    ফোন : ০১৫৫৮১৪৫৫২৪ email : swapnochash@gmail.com

    ©- 2021 স্বপ্নচাষ.কম কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।