• বৃহস্পতিবার ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    স্বপ্নচাষ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন  
    আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে, বাড়ছে মৃত্যু

    নতুন হটস্পট হচ্ছে চট্টগ্রাম

    স্বপ্নচাষ ডেস্ক

    ৩০ মে ২০২০ ১:২৯ অপরাহ্ণ

    নতুন হটস্পট হচ্ছে চট্টগ্রাম

    প্রতীকী ছবি

    চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে ঘোড়দৌড় গতিতে। গত ২৮ মে চট্টগ্রামে একদিনে নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৪৫৭ জনের, এর মধ্যে পজিটিভ আসে ২২৮ জন, ২৭ মে নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৬০২ জনের, এর মধ্যে পজিটিভ আসে ২১৫ জন, ২৬ মে নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৫০৭ জনের, পজিটিভ আসে ৮৯ জন এবং ২৫ মে নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৩৮০ জনের, এর মধ্যে পজিটিভ আসে ১৭৯ জন। চার দিনে গড়ে ১৭৮ জন করে আক্রান্ত হয়।

    করোনাভাইরাস আক্রান্তে ঘোড়দৌড় থাকলেও সাধারণ মানুষের মধ্যে কোনো সচেতনতা কিংবা সতর্কতা নেই। প্রতিদিনই স্বাভাবিক সময়ের মতো চলাফেরা ও ঘোরাঘুরি করছে মানুষ।

    চট্টগ্রাম নগরে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা এবং উপজেলায় নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিয়মিত সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করছেন। তবুও কোনো মতেই ঠেকানো যাচ্ছে না সাধারণ জীবনাচার। সবাই যেন নির্লিপ্ত, নির্বিকার।

    চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ‘প্রতিদিনই নতুন নতুন করে আক্রান্ত হচ্ছে। তবে ভাইরাসটি যেহেতু প্রতিরোধই উত্তম পন্থা, তাই আমাদের সবাইকেই এ ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্ক ও সচেতন থাকা উচিত। কিন্তু অনেকেই এখনো স্বাভাবিক নিয়মে ঘোরাফেরা করছেন, যা মোটেও কাম্য নয়। এর চরম খেসারত আমাদেরই দিতে হচ্ছে।’

    চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘এত আক্রান্ত, এত মৃত্যু, এত দুর্ঘটনা। তবুও আমাদের মধ্যে সামান্যতম চেতনাবোধ আসছে না। দেখা যাচ্ছে অনেকেই এখনো নির্লিপ্ত, নির্বিকার। অনেকেই এখনো ইচ্ছামতো চলাফেরা করছেন। জানি না মানুষ কখন সচেতন হবে।’

    সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্ত হয় দুই হাজার ৪২৯ জন। গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৬৬ জন, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৯৭ জন, বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ২৩১ জন, হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৩৫৭ জন, চট্টগ্রামে আক্রান্ত হওয়াদের মধ্যে মৃত্যুর হার ৩ শতাংশ এবং সুস্থ হওয়ার হার ১০ শতাংশ। চট্টগ্রামে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় ৩ এপ্রিল। বর্তমানে চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা চলছে জেনারেল হাসপাতালের ১৫০টি শয্যা, বিআইটিআইডিতে ৩০ শয্যা ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ১০০ শয্যায়। তাছাড়া জেনারেল হাসপাতালে আছে ১০ শয্যার আইসিইউ ইউনিট।

    স্বপ্নচাষ/আরএস

    Facebook Comments

    বাংলাদেশ সময়: ১:২৯ অপরাহ্ণ | শনিবার, ৩০ মে ২০২০

    swapnochash24.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  

    সম্পাদক : এনায়েত করিম

    সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: গুরুদাসপুর, নাটোর-৬৪৩০
    ফোন : ০১৫৫৮১৪৫৫২৪ email : swapnochash@gmail.com

    ©- 2020 স্বপ্নচাষ.কম কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।