• রবিবার ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    স্বপ্নচাষ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন  

    ‘জীবন-জীবিকা দুটোই রক্ষার চেষ্টায় সরকার’

    স্বপ্নচাষ ডেস্ক

    ০৭ মে ২০২০ ৮:৫৩ অপরাহ্ণ

    ‘জীবন-জীবিকা দুটোই রক্ষার চেষ্টায় সরকার’

    ফাইল ছবি

    করোনাভাইরাস সংক্রমণ বাড়তে থাকার মধ্যে মার্কেট-মসজিদ খোলার সিদ্ধান্তের পেছনে যুক্তি দিয়ে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, জীবন ও জীবিকা দুটোই রক্ষা করার জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

    এ প্রসঙ্গে করোনাভাইরাস মহামারীতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর অন্যতম ইতালি ও স্পেনেও লকডাউন শিথিল করার কথা তুলে ধরেছেন তিনি।

    বৃহস্পতিবার বিকেলে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন অংশীজনদের সঙ্গে জেলা প্রশাসন আয়োজিত সমন্বয় সভায় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রামের সন্তান হাছান মাহমুদ।

    সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান বলেন, “মানুষের জীবন রক্ষার পাশাপাশি সরকারকে মানুষের জীবিকাকেও রক্ষা করতে হয়। সেই কারণে জীবন ও জীবিকা দুটোই রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

    “করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর থেকেই নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই পদক্ষেপগুলো গ্রহণ করার কারণেই পৃথিবীর অনেক দেশের তুলনায় আমাদের দেশের পরিস্থিতি এখনো অনেকটা ভালো। তাই বলে সরকার বসে নেই। কারণ আপনারা দেখতে পাচ্ছেন, সংক্রমণ বাড়ছে এবং যে কোনো পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। সেজন্য আমরা সবার সহযোগিতা নিয়ে কাজ করছি।”

    হাছান মাহমুদ বলেন, “স্পেন, ইতালি, সিঙ্গাপুরসহ পৃথিবীর অনেক দেশে যেখানে এখনও প্রতিদিন করোনাভাইরাসে আড়াই থেকে তিনশ জন মানুষ মৃত্যুবরণ করছে সেখানে লকডাউন শিথিল করা হয়েছে। জীবন রক্ষা করার জন্য মানুষের জীবিকাকেও রক্ষা করতে হবে।

    “কিন্তু সেজন্য আমাদেরকে অবশ্যই অত্যন্ত সতর্কতা অবলম্বন করেই এই কাজগুলো করতে হবে। সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকে আগামী ১০ মে থেকে দোকানপাট সকাল ১০টা থেকে ৪টা পর্যন্ত সীমিত আকারে খোলার সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়েছে। সেখানে কিছু নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।”

    মার্কেট ও মসজিদ খুলে দেওয়ায় সংক্রমণ বাড়বে কি না এক সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “সবাই যদি সম্মিলিতভাবে মানুষকে সচেতন করতে পারি তাহলে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা অনেক সহজ হবে। এজন্য গণমাধ্যমকর্মীরা শুরু থেকেই প্রচারণা চালাচ্ছেন।

    “কেউ যাতে অপ্রয়োজনে বাজারে না যান, মানুষ যাতে সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে মার্কেট ও মসজিদে যান। চট্টগ্রামের মার্কেটগুলোর প্রবেশ পথে জীবাণুনাশক চেম্বার স্থাপন করতে হবে। মাস্ক-স্যানিটাইজারের পাশাপাশি যদি মার্কেটে ঢোকার সময় ডিজইনফেকশন চেম্বারের ভেতর দিয়ে প্রবেশ করেন তাহলে ডিজইনফেক্টেড হয়ে যাবে।”

    তিনি বলেন, “প্রতিটি শপিংমল ও বিপণবিতানের সামনে ‘স্বাস্থ্য বিষয়ক সতর্কবাণী না মানলে মৃত্যুর ঝুঁকি আছে’ লেখা ব্যানার সাঁটাতে হবে। এবং প্রবেশপথে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে। ক্রেতা-বিক্রেতা সবাইকে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। সামাজিক ও শারীরিক দুরত্ব বজায় রাখতে হবে।”

    চট্টগ্রামে করোনাভাইরাস পরীক্ষার রিপোর্ট পেতে দীর্ঘসময় লেগে যাওয়ার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, “স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে আজকের সভায় বলা হয়েছে, আগে টেস্টের রিপোর্ট পেতে সাত দিন লাগত। এখন সেটি কমিয়ে চার দিনে এনেছে।

    “চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়েও আরেকটি ল্যাব চালুর বিষয়ে চেষ্টা চলছে বলে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক সভায় জানিয়েছেন। চট্টগ্রামে অন্তত প্রতিদিন পাঁচশ নমুনা পরীক্ষা যাতে করা যায় সেই চেষ্টা চলছে। ক্রমান্বয়ে এ সমস্যা কমে যাবে।”

    যারা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছেন, তারা যেন অন্য কারও সাথে মেলামেশা না করেন সেই অনুরোধও জানান তথ্যমন্ত্রী।

    চট্টগ্রামে বেসরকারি হাসপাতাল মালিকদের যৌথ উদ্যোগে করোনাভাইরাস চিকিৎসার জন্য প্রস্তুত করা হলি ক্রিসেন্ট হাসপাতালটি সরকারি ব্যবস্থাপনায় চালু করা হবে বলেও জানান তথ্যমন্ত্রী।

    এ বিষয়ে তিনি বলেন, “আজকে আমরা স্থির সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি সরকারি ব্যস্থাপনাতেই সেটি চালু করা হবে। সভার সিদ্ধান্ত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে জানিয়ে দেওয়া হবে। সরকারি ব্যবস্থাপনায় চালু করতে হলেও তো কিছু আনুষঙ্গিক কাজকর্ম আছে। সেগুলো করতে কিছুটা সময় লাগবে। চেষ্টা চলছে যতদ্রুত সম্ভব সেটা চালু করার।”

    সভায় তথ্যমন্ত্রী বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার দেশের এক তৃতীয়াংশের বেশি মানুষকে নানাভাবে সহায়তার আওতায় এনেছে। এই বৈশ্বিক দূর্যোগের সময় পৃথিবীর খুব বেশি দেশে এভাবে এক তৃতীয়াংশ মানুষকে সরকারি সহায়তার আওতায় আনেনি।”

    করোনাভাইরাস সঙ্কটে চট্টগ্রাম জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিনের সঞ্চালনায় সমন্বয় সভায় সভাপতিত্ব করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

    সভায় বক্তব্য রাখেন সাংসদ ওয়াসিকা আয়েশা খানম, সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুখ, জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন, বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক হাসান শাহরিয়ার কবির ও সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি।

    স্বপ্নচাষ/আরএস

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৮:৫৩ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৭ মে ২০২০

    swapnochash24.com |

    advertisement

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    advertisement
    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    advertisement

    সম্পাদক : এনায়েত করিম

    প্রধান কার্যালয় : ৫৩০ (২য় তলা), দড়িখরবোনা, উপশহর মোড়, রাজশাহী-৬২০২
    ফোন : ০১৫৫৮১৪৫৫২৪ email : swapnochash@gmail.com

    ©- 2021 স্বপ্নচাষ.কম কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।