• সোমবার ২৬শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১১ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    স্বপ্নচাষ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন  
    আবার কারখানায় আগুন

    অবহেলায় আর কত প্রাণ যাবে

    স্বপ্নচাষ ডেস্ক

    ১১ জুলাই ২০২১ ৬:৩৩ অপরাহ্ণ

    অবহেলায় আর কত প্রাণ যাবে

    নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতার কর্ণগোপ এলাকায় সজীব গ্রুপের মালিকানাধীন হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজের ছয়তলা কারখানা ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। আগুনের সূচনা গত বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে। ২৬ ঘণ্টা পর শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

    উদ্ধার করা লাশগুলো এতটাই পুড়েছে যে তাঁদের পরিচয় নিশ্চিত হতে ডিএনএ পরীক্ষা করাতে হচ্ছে। স্বজন হারানো মানুষকে লাশ বুঝে পেতে সপ্তাহ তিনেক অপেক্ষা করতে হবে। নিখোঁজ কর্মীদের খোঁজে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের মর্গে ভিড় করছে তাঁদের স্বজনরা।

    আগুন লাগার ঘটনার পর নানা খবরের সঙ্গে বেরিয়ে এসেছে নানা অসংগতিও। কারখানা কর্তৃপক্ষ গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, তাদের কর্মী সংখ্যা ছয় হাজার।

    বৃহস্পতিবার বিকেলে ৪০০ শ্রমিক ওভারটাইম কাজ করছিলেন। অন্যদিকে শ্রমিকদের দাবি, কর্মী সংখ্যা ছিল সহস্রাধিক। আগুন লাগার পর আটকা পড়েন শতাধিক।

    তাৎক্ষণিকভাবে ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে, ফয়েল পেপার, তেলসহ বিভিন্ন দাহ্য পদার্থের কারণে দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে, যা নিয়ন্ত্রণ করা তাদের জন্য কঠিন হয়ে পড়ে।

    অন্যদিকে কারখানার ছাদে ওঠার একটি সিঁড়ির তালাবদ্ধ থাকা এবং জরুরি বহির্গমনের পথ না থাকায় শ্রমিকরা আটকা পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন। কারখানার ভবনটিতে আগুন নেভানোর সরঞ্জাম যেমন ছিল না, তেমনি জরুরি বের হওয়ার প্রয়োজনীয় সংখ্যক পথও রাখা হয়নি বলে প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ শেষে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

    ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তাদের মতে, ৩৫ হাজার বর্গফুট আয়তনের ছয়তলা ওই কারখানা ভবনে অগ্নি নিরাপত্তার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা তাঁরা দেখেননি; জরুরি বের হওয়ার প্রয়োজনীয় সংখ্যক পথও সেখানে ছিল না। কারখানার একটি সিঁড়ি বন্ধ না থাকলে অনেক প্রাণ বাঁচানো যেত বলে মনে করছেন তাঁরা।

    ঘটনার তদন্তে ফায়ার সার্ভিস পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কলকারখানা পরিদপ্তর। ঘটনা তদন্তে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও সাত সদস্যের আলাদা তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

    একাধিক তদন্ত কমিটির তদন্তে সজীব গ্রুপের হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজে অগ্নিকাণ্ডের কারণ হয়তো জানা যাবে। তদন্ত কমিটিগুলো আবারও নতুন নতুন সুপারিশ করবে। কিন্তু যে কারণে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা, তা দেখার কি কেউ ছিল না?

    যেকোনো কারখানায় দুর্ঘটনা ঘটার পর বারবারই নিরাপত্তার বিষয়টি সামনে চলে আসে। আলোচিত হয়। কিন্তু সজীব গ্রুপের হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি বলে দিচ্ছে শ্রমিকের নিরাপত্তার বিষয়ে মালিকদের কোনো দৃষ্টি নেই। অন্যদিকে শিশুশ্রমের বিষয়টি নতুন করে সামনে চলে এলো এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায়।

    কয়েক দিন আগেই মগবাজারে এক বিস্ফোরণে কয়েকজনের প্রাণ গেল। একইভাবে অনেক মানুষের প্রাণ গেছে তাজরীন ফ্যাশনস, রানা প্লাজা, নিমতলী কিংবা চুড়িহাট্টার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায়। প্রতিবার প্রাণহানির পর বেরিয়ে এসেছে নানা অনিয়ম আর অবহেলার কথা। প্রশ্ন হচ্ছে, কত দিন এই অনিয়ম? অবহেলায় আর কত প্রাণ যাবে?

    স্বপ্নচাষ/একে

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৬:৩৩ অপরাহ্ণ | রবিবার, ১১ জুলাই ২০২১

    swapnochash24.com |

    advertisement

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    advertisement
    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
    advertisement

    সম্পাদক : এনায়েত করিম

    প্রধান কার্যালয় : ৫৩০ (২য় তলা), দড়িখরবোনা, উপশহর মোড়, রাজশাহী-৬২০২
    ফোন : ০১৫৫৮১৪৫৫২৪ email : swapnochash@gmail.com

    ©- 2021 স্বপ্নচাষ.কম কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।